Friday, January 14, 2011

harichand thakur

Harichand thakur (matuaism)

 https://www.facebook.com/pages/Harichand-thakur-matuaism/341248295902731
(please follow this link would love to see people posting new posts/news relating to any events from matua mahasanga...songs and videos of sri sri harichand-guruchand thakur.....etc.....thanx)


Harichand Thakur (1811-1877) a Hindu votary and founder of the Matuya sect, was born in Orakandi of Kashiani Upazila in Gopalganj (Greater faridpur) on the thirteenth day of Falgun 1214 of the Bangla calendar


Harichand received little formal education. After completing his initial schooling in a pathshala, he attended school for only a few months. He then started spending his time with shepherds and cowboys and roamed with them from one place to another. He started changing from this time. He was loved by all of his friends for his physical beauty, naivete, love for music and philanthropic attitude. He could also sing bhajan (devotional songs).


Harichand's doctrine is based on three basic principles-truth, love, and sanctity. The doctrine treats all people as equal; people are not seen according to castes or sects. Himself a Brahmin, he professed mixed with lower-caste people and treated them with the same dignity as he did other castes. This is why most of his followers believe Harichand to be an avatar (incarnation) of vishnu, and are from the lower strata of society.


They used to affirm: Rama hari krisna hari hari gorachand. Sarba hari mile ei purna harichand (Rama is lord, Krishna is lord, lord is Chaitanyadev. But all of them make our Harichand, who is our lord.) Harichand did not believe in asceticism; he was more of a family man; and it is from within the family that he preached the word of God. He believed that 'Grihete thakiya Jar hay bhabodhay. Sei ye param sadhu janio nishchay' (the best ascetic is he who can express his devotion to God remaining a family man). He mobilised all the neglected sects and castes and inspired them to remain true to the openness of Hinduism.
Matuya Hindu religious community, founded by Sri Sri Harichand Thakur of Gopalganj. The word 'Matuya' means to be absorbed or remain absorbed in meditation, specifically to be absorbed in the meditation of the divine.


Matuya Hindu religious community, founded by Sri Sri Harichand Thakur of Gopalganj. The word 'Matuya' means to be absorbed or remain absorbed in meditation, specifically to be absorbed in the meditation of the divine.
The Matuya sect is "monotheist". It is not committed to Vedic rituals, and singing hymns in praise of the deity is their way of prayer and meditation. They believe that salvation lies in faith and devotion. Their ultimate objective is to attain truth through this kind of meditation and worship. They believe that love is the only way to God. The Matuya have no distinctions of caste, creed, or class. They believe that everyone is a child of God.


                                     Thakurnagar Hari Mandir at Thakurbari


The Matuya believe that male and female are equal. They discourage early marriage. Widow remarriage is allowed. They refer to their religious teachers as 'gonsai;' both men and women can be gonsai. The community observes Wednesday as the day of communal worship.


The gathering, which is called 'Hari Sabha' (the meeting of Hari), is an occasion for the Matuya to sing kirtan in praise of Hari till they almost fall senseless. musical instruments such as "jaydanka, kansa, conch, shinga," accompany the kirtan. The gonsai, garlanded with karanga (coconut shell) and carrying chhota, sticks about twenty inches long, and red flags with white patches, lead the singing.


"Shrishriharililamrta" is the principal religious scripture of the Matuya. Apart from praising Hari and meditating upon him, the Matuya believe in kindness to the living. In order to stress the importance of all living creatures and the equality of all life, they say that the remains of what a dog has eaten are holy food and that what is upheld as holy by the vedas and orthodox religion is to be violated. These ideas are expressed in the following lines of verse:
Hari dhyan Hari jnan Hari nam
 
Premete matoyara matuya nam
 
Jibe daya name ruchi manusete
 
Iha chhada ar yata sab kriya
 
Kukurer prasad pele khai
Veda-bidhi shauchachar nahi mani tai.
The Matuya are found in Bangladesh and West Bengal. Their principal temple is at Orakandi in Gopalganj, where a fair is held every year on the 13th day of the lunar month in Falgun, on the birth anniversary of Harichand Thakur. Thousands of devotees from all over the country gather on the occasions, bringing rice, lentils, and vegetables as token of their devotion and love. 

The same fair used to be held at Thakurnagar,Thakurbari too on the birth anniversary of Harichand Thakur.Lakhs and lakhs of devotees from all over the country gather on the occasion.This is where all people come to "boroma" with lots of issues regarding their family etc..wishing boroma can solve their problems
Its a pure example of truth,honest,love and devotion.
They take bath in the holy water of Kamana Sagar before performing any worship.


                                                        Kamana Sagar




Matuya Sangit spiritual songs of the Matuya sect, containing praises of the god Hari and their gurus, Harichand Thakur and Guruchand. Composers of Matuya songs include Aswani Gosai, Tarak Chandra Sarker, Manohar Sarker, Mahananda Sarker, Rasik Sarker, Prafulla Gonsai, Surendranath Sarker, and Swarup Sarker.(they are the real followers i must say)


Composed in the manner of baul songs, these songs are predominantly about love (prem) and devotion (bhakti). The closing lines of the songs mention the name of the composer. Musical instruments such as the drum, shinga, and kansa are used as accompaniments. The devotees dance while they sing.


Matuya songs describe the longing of the soul for the divine. As in other religious poetry, the desire of the human soul is imaged in terms of human love as in the following songs: Hari tomar namer madhu pan korla na man-bhramara (The honey-bee mind has not drunk the honey from your name, oh Hari), Kabe tanre pab re, paran kande Harichand bali (When shall I meet Him, my soul cries for Harichand), Amar ei akinchan, he Guruchand tomay ami bhalabasi (Listen to me, O Guruchand, I love you).
(there were lots of song to sing though)

















Jugabatar Sri Sri Harichand Thakur and Bholanath Sri Sri  Guruchand Thakur appeared on this earth for the Spiritual Salvation of the distressed and oppressed men and women of this Country.
He taught his countrymen to reveal the spirit of Humanism.Sympathy,Keen curiosity,Rational outlook and Divine power.
The Matuya Sect is the forerunner in themovement of spiritual freedom.

I shall love to start my writing about Harichand Thakur starting with the bandana :-
JAY JAY HARICHAND JAY KRISHNADAS
JAY SRI VAISHNAV DAS JAY GOURIDAS
JAY SRISWARUPDAS PANCHA SAHADOR
PATITA PABAN HETU HOILA ABATAR
JAY JAY GURUCHAND JAY HIRAMON
JAY SRI GOLOK CHANDRA SRI SREELOCHON
JAY JAY DASHARATH JAY MRITYUNJAY
JAY JAY MAHANANDA PREMANANDA MOY
JAY NATU JAY BRAJA JAY BISWANATH
NIJO DAS KORI MORE KORO ATTASAT..
JAI HARI JAI HARI JAI HARI...

God is the creator of the universe and man is his best creation.There is no division or differences in the kingdom of god.We man are the only responsible persons for the divisions.Man pollutes the kingdom of God by creating the barriers of the rich-poor,high-low and touchables-untouchables.
God has to come down to the world to save the common men and women from their sufferings.God has to come down to mortal world when men and women suffer torture,injustice and exploitation.In gita it says :-
PARITRANAYA SADHUNAM
BINASAYA CHA DUSKRITAM
DHARMA SANGSTHAPANAYA
SAMVABAMI JUGE JUGE
(To serve the honest and destroy the wicked I have to come to the world again and again to establish the religion)

IMPORTANT NOTIFICATION:-
I am proud to announce that there is a feature film going to be released based on the life and preachings of Harichand Thakur
"PURNA BRAHMA SRI SRI HARICHAND"













হারি পুজো প্রকরণ 
বন্দনা

যায় যায় হারিচান্দ যায় কৃষ্ণদাস
যায় শ্রী বায়শ্নাব্দাস যায় গুরিদাস 
যায় শ্রী স্বরূপ দাস পান্চাসাহাদার
পতিতা পবন হেতু হইলা আভাতার
যায় যায় গুরুচান্দ যায় হিরামান
যায় শ্রী গলক্চান্দ্র যায় সৃলাচন
যায় যায় দশরথ যায় মৃত্যুঞ্জয় যায় যায় মহানন্দা প্রেমানন্দ মে
যায় নতু যায় ব্রাজ যায় বিশ্বনাথ
নিজ দাস করি মরে কর আত্মসাত

শান্তি মের প্রতি প্রনাম

রক্ত জব সমাকান্তি কাশ্যপ তনয়া
তামারাসী কর নাস মহা জ্যোতির্মায়া
সর্ব পাপ খায় মাগো তোমার স্বরণে
প্রানামামি সন্তিমাতা তোমার চরণে

 জাগাত্মাতা বিনাপানি দেবির ইর দৈববাণী মন্ত্র

প্রনামী তোমারে মাগো দেবী সন্তিমাতা
কি দিয়া পুজিব তোমার চারণ দুখানা
ভক্তি সক্তি নাই মাগো নাই চকের জল
আমি অতি অভাগা অতি অভাজানা
দয়াময়ী নাম তোমার জগত সংসারে
এই ভিক্ষা মাগী মাগো তোমার নিকটে
তোমার চারণ ছাড়া করনা আমারে
মা মা ক্ষমা কর ভক্তের বাঁচা পূর্ণ কর
 (হারি ঠাকুরের সামনে ভোগ সাজিয়ে বিনাপানি ডেভি এই মন্ত্র টি ৩বার পাঠ করে পুজো করেন)

মঙ্গলাচরণ

হারিচান্দ চরিত্র সুধা প্রেমের ভান্ডার
আদি অন্ত নাহি যার কালিতে প্রচার
সত্য ত্রেতা দ্যাপরের সেস হে কলি
ধন্না কলিযুগ কাহে বৈষ্ণব সকলি
তিন যুগ পরে কলি যুগ এ কনিষ্ঠা
কনিষ্ঠা হইয়া হিল সর্বযুগ স্রেস্থা
এই কলিকালে সৃগুরান্গা আভাতার
বর্তমান ক্ষেত্রে দারু-ব্রাহ্মারুপ এরর
যে যাহারে ভক্তি করে সে তার ইশ্বর
ভক্তি যোগে সেই তার সবং আভাতার
হয় গরিব আভাতার কাপিলাভাতার
আস্ত বিংসা আভাতার পুরানে প্রচার
মত্স্য কুম্মা বরাহ বামন নারাহারি
বৃঘুরাম রঘুনাথ রাম অভ্তারি
ইশ্বরের অন্গ্শাকালা সব আভাতার
প্রথম পুরুষ আভাতার রঘুবর
ননদের নান্দন হলো গোলকের নাথ
সংকার্সান রাম আভাতার তার সাথ
সব ইশ্বরের অংস পুরানের নিরখি
বর্তমান দারু ব্রাহ্ম্হা অভতার কল্কি
সব আভাতার হতে রাম দায়ামাহ্য়
দারু ভ্রাম্হা দয়াময় কৃষ্ণা দয়াময়
পুর্ণব্রাহ্ম্হা পুর্নানান্দা ননদের নান্দন
সেই নান্দাসুত হলো সচির নান্দন
যে কালে জন্মিল কৃষ্ণা পুর্ণব্রাহ্ম্হা নয়
পূর্ণ হলো যে কালে পরিল যামুনে
সাচি গর্ভে জন্মে লয়ে না ছিলেন পূর্ণ
দীক্ষা প্রাপ্তে পূর্ণ নাম শ্রী কৃষ্ণা চায়তান্যা
তখন হইয়া পূর্ণ সন্যাস করিলে 
অত্চালিস বার্সা পরে মিসিলা উত্কালে
সকল হারান করে তারে বলে হারি
রাম হারি কৃষ্ণা হারি শ্রী গৌরাঙ্গ হারি
প্রেমদাতা নিত্যানন্দ তার সামিভ্হারে
হারিকে হারয় সেই হারিভক্ত দারে
নিত্যানন্দ হারিকিরিষ্ণা হারি গুর হারি
হারিচান্দ আসল হারি পুর্ণনান্দা হারি
এই হারিচান্দ লীলা সুধার সাগর
তার কেড়ে কর হারি তাহাতে মকর

হারিগুরুচান্দের প্রতি অঞ্জলি

ত্য্লসি চন্দন যুক্ত ফুল বেল্পাত্রা
তোমাকে পুজিতে বাবা আমি নই পত্র
হারি-গুরুচান্দ সমারি হে কৃতাঞ্জলি
নিজ গুনে পদে লু আমার অঞ্জলি

শান্তি সত্যাবামার প্রতি অঞ্জলি
স্বর্গাদপি গরিয়সী শান্তি সত্যভামা
লাক্খিরুপা শান্তি সত্যভামা হারারামা
সার্ভাভুতে মাতৃরূপে দহে বিরাজিত
চন্দনে মিশ্রিত পুস্প পদে দানি মাতা
 (বেল তলার পূজা মাতুয়া মতে নাই তাই বেল গাছের পুজো করি কারণ ---

বেল বৃক্ষের কাহিনী

পুরানে বর্ণিত বেল বৃক্ষা বিবাহারান
সেই কথা ভক্তি ভাবে করহ স্রাভান
আসল ঘটনা যাহা বলে ভাগবতে
কুচনি পারা যাতায়াত করে ভোলানাথে
স্রাভানে পশিয়া তবে মাতা হৈমবতী
গোপনে করিল যাত্রা মনে রুস্থা এটি
দূর্গা অগম্পনে বাহে হেমন্ত বাতাস
পশিয়া শিবের মনে লাগিল ত্রাস
লুকিয়াইতে চুত্সা ছুটি করে পান্ছানান
বনে যেতে সম্মুখেতে মাঠ দর্শন
শিবকে দেখিয়া দূর্গা বেল গাছ হলো
হেন কালে সিতালতা হাতাত ফুরালো
প্রখর রোদের তাপে গাছ তলা দরে
শীতল বাতাস কিন্তু সে বেল তলে
বাহিরে প্রখর রদ টীকা হলো দায়
খুদা তৃষ্ণা দুই ভাবে পরে সমাহ্সার
হেন কালে নারদ এসে দিল দর্শন
বলে মামা কিবা হলো মজাটি কেমন
সেভ বলে কিভা করি নাহি উপে
খুদা তৃষ্ণা এসে মোর্র দাহিয়েছে হৃদয়
নারদ বলিল সুন মামা পান্চানান
এই বৃক্ষা ফল তুমি করহ ভক্ষণ
খুদা তৃষ্ণা প্রশমিত হইবে এই ফলে
তাই সুনে ভোলানাথ মুখে দিল তুলে
নারদ বলল কার ছায়ায় এলে ভোলানাথ
মনে প্রাণে ডাক তারে হইবে সাক্ষাত
তাহা সুনে ভোলানাথ করিলেন ধ্যান
আত্মপর মা ভাভানি হলো অধিষ্ঠান
মাত্রই দুগ্ধ সম বেল নামটি শ্রীফল 
তাই বেল পাত্রে সিভ তুষ্ট চিরকাল
এই হলো বেল বৃক্ষা জন্ম বিভারান
এই জন্য বৃক্ষা পূজা প্রথা আচরণ 
বেল বৃক্ষা মাতা দূর্গা বেল মাত্রই স্তন
প্রনাম জানায় জাচিই অভিস্থা পূরণ